20. juli 2050 - 13:00 indtil 16:00
Del det på:

ঢাবির অধিভুক্ত ৭ কলেজের সংকট নিরসনের দাবিতে মানববন্ধন ও অবস্থান | Jobs & Study | onsdag, 20. juli 2050

১৪ -০৭-২০১৭ তরিখ সাত কলেজের শিক্ষার্থী প্রতিনিধীরা ঢাকা কলেজে একত্রিত হন।সাত কলেজের চলমান সংকট নিরসনে নানা দিক নিয়ে আলোচনা, পরিকল্পনা করা হয়। কিন্তু যতই পরিকল্পনা করা হোক না কেন সকলের প্রচেষ্টা ও উপস্থিতি প্রয়োজন।
সকল সংকট দূর নিরসন ও একটি সুন্দর সমাধানের লক্ষে আগামী ২০ তারিখ রোজ বৃহস্পতিবার
" মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি " ঘোষনা করা হয়েছে :)

তারিখ: ২০-০৭-২০১৭ (বৃহষ্পতিবার)
স্থান : জাতীয় জাদুঘর, শাহবাগ.
সময় : সকাল ১০টা

সবাই আমরা ফেইসবুকে লাইক, কমেন্ট করি এটা ভালো দিক কিন্তু তার সাথে সাথে এই ইভেন্ট শেয়ার করুন। নিজে উপস্থিত থেকে সামনের এই কর্মসূচী সফল করার আহবান জানাচ্ছি।

সেশনজট নিরসনে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাজধানীর সাত সরকারি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করা হয়। তবে গত ৫ মাস অতিবাহিত হলেও দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি না থাকায় চরম দুশ্চিন্তায় পড়েছে এসব কলেজে অধ্যয়নরত প্রায় দুই লাখ শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে বাড়ছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।
এদিকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে কলেজেগুলোতে ২০১৫ সালের স্নাতক (সম্মান) শেষ বর্ষের ফল প্রকাশ হলেও ঢাবির অধিভুক্তির পর্যায়ে থাকা সাতটি কলেজের প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থীর ফলাফলা প্রকাশ করা হয়নি। এতে চরম হতাশা সৃষ্টি হয়েছে শিক্ষার্থীর মধ্যে। এই সাত কলেজে পরীক্ষা কার্যক্রম ও পাঠদান পুরনো সিলেবাস অনুযায়ীই চলছে। ফলে তাদের সেশনজটে পড়ারও আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫ সালের স্নাতক চতুর্থ বর্ষের লিখিত পরীক্ষা শুরু হয়েছিল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনেই, ৩ জানুয়ারি। শেষ হয় গত ১১ ফেব্রুয়ারি। কিন্তু ব্যবহারিক শুরুর আগেই কলেজগুলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চলে যায়। যদিও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতায় থাকা অন্য কলেজগুলোর ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ করে ফলাফলও প্রদান করা হয়েছে গত রোববার। এছাড়া ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের নিয়মিত ও প্রাইভেট (নতুন সিলেবাস) এমএ, এমএসএস, এমবিএ, এমএসসি ও এমমিউজ শেষপর্ব পরীক্ষা শেষ করছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। ২০১৬ সালের ডিগ্রি পাস ও সার্টিফিকেট কোর্স পরীক্ষা নিচ্ছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। অথচ অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা পুরোপুরি অন্ধকারে রয়েছে।

তারা এ পরীক্ষায় অংশও নিতে পারছে না। এ ছাড়া জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষার সময়সূচিতে রাখা হয়নি অধিভুক্ত সাত কলেজ। ইতোমধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ওই শিক্ষাবর্ষে মাস্টার্সের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও এই সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা এতে অংশ নিতে পারেনি। এমনকি এসব কলেজের শিক্ষার্থীর তথ্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকেও সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ঢাকা কলেজের অনার্স শেষবর্ষের শিক্ষার্থীরা জানান, একসঙ্গে পরীক্ষা দিয়ে আমাদের বন্ধুরা অনার্স শেষ করছে।

কিন্তু আমাদের এখনও ভাইবা নেওয়া হয়নি। এটা শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাদের অবহেলা ছাড়া আর কিছু না। মান দিতে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে ফান করছে ঢাবি। তারা আরও জানান, দু-একদিনের মধ্যে আমরা মানববন্ধনের মাধ্যমে প্রাথমিক প্রতিবাদ জানাব। এতে যদি প্রশাসন কোনো ধরনের ব্যবস্থা না নেয় তাহলে আমরা বৃহত্তম আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায় করব।

এব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা কলেজের প্রিন্সিপাল ড. মোয়াজ্জেম হোসেন মোল্লা বলেন, আশা করছি কোনো ধরনের সেশনজটে পড়বে না শিক্ষার্থীরা। কিছুটা গ্যাপ হয়েছে মানছি। নতুন কাজ তো, এজন্য একটু সময় লাগছে। আমার ধারণা আগামী জুনের শেষ সপ্তাহে ফলাফল প্রকাশ করা হবে। এছাড়া চলতি মাসের ২০ তারিখ থেকে বিভিন্ন বিভাগে ভাইবা নেওয়া শুরু হবে। সংশ্লিষ্টরা জানান, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতায় থাকাকালীন এ সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের অনেকে এক বা একাধিক বিষয়ে অনুত্তীর্ণ হয়ে পরের বর্ষে প্রমোশন পেয়েছে।

নিয়ম অনুযায়ী চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষার আগে পূর্বের বর্ষের অনুত্তীর্ণ বিষয়গুলোতে উত্তীর্ণ না হলে ফল স্থগিত থাকে। এখন এ ধরনের শিক্ষার্থী, যারা একাধিক বর্ষে বিভিন্ন বিষয়ে অনুত্তীর্ণ হয়েছে, তারা কোন সিলেবাসে, কোথায় পরীক্ষা দেবে তা নিয়ে চরম বিভ্রান্তিতে আছে। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে খুব শিগগির এসব শিক্ষার্থীর সমস্যা সমাধানও সম্ভব নয়। এব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত কলেজ পরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, নতুন কাজ শুরু করতে একটু সময় লাগে। ইতোমধ্যে আমরা রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়ার কাজ শুরু করেছি।

এছাড়া রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকায় ওই কলেজগুলোর ২০১৫ সালের স্নাতক (সম্মান) শেষ বর্ষে শিক্ষার্থীদের মৌখিক ও ব্যবহারিক পরীক্ষা নেওয়া হয়নি। আশা করছি আগামী জুনের মধ্যে সবকাজ শেষ করে ফলাফল ঘোষণা করা হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়া কলেজগুলো হলো ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাংলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ।